গাড়িতে এসি চালালে কতটুকু পেট্রোল খরচ হয়?

টেকভিশন২৪ ডেস্ক:  তীব্র তাপপ্রবাহে গাড়িতে এসি ব্যবহার ছাড়া উপায় নেই। অনেক সময় দীর্ঘ ভ্রমণে ঘেমে নেয়ে একাকার অবস্থা হয় যাত্রী ও চালকের। অস্বস্তিকর পরিবেশের মুখে পড়তে হয়। অনেকে অসুস্থ হয়ে পড়েন, মৃত্যুও হতে পারে।

তবে গাড়িতে এসি চালালে কিন্তু পেট্রোল খরচও বাড়বে কিছুটা। কতটা বাড়বে জানেন কি? গাড়ি চালানোর সময় শুধু রাস্তায় চোখ রাখলে হবে না, খেয়াল রাখতে হয় ফুয়েল ইন্ডিকেটর এবং পকেটের দিকেও। অনেকে মনে করেন গাড়িতে যদি টানা অনেকক্ষণ এয়ার কন্ডিশনার চলে তাহলে তেল খরচ অনেক বেশি হয়।

ট্রাফিক বেশি থাকলে এসি সর্বদা বন্ধ রাখারই চেষ্টা করেন। যতই গরম পড়ুক না কেন এসি চালানো থেকে বিরত থাকেন অনেকে। তবে জানেন কি এসি ব্যবহার করলে খুব বেশি পেট্রোল খরচ কিন্তু হয় না। এমনকি অনেকের ধারণা গাড়িতে এসি ব্যবহার করলে গাড়ির মাইলেজ কমে যায়। আসলে এমন কিছুই হয় না।

এটা সত্যি যে এয়ার কন্ডিশনিং সিস্টেম চালু থাকলে গাড়ির ইঞ্জিনের উপর চাপ পড়ে। আর গাড়ির ইঞ্জিন যত বেশি শক্তি উৎপাদন করবে তত বেশি তেল খরচ হবে। কিন্তু জানেন কি, আপনি যদি এক ঘণ্টা এসি চালিয়ে রাখেন কত তেল খরচ হয়? ঠিক কত টাকা খরচ হবে আপনার? চলুন দেখে নেওয়া যাক-

একাধিক রিপোর্ট ও সমীক্ষা অনুযায়ী, গাড়ির এসি চালু থাকলে ৪ থেকে ১০ শতাংশ পেট্রোল বা ডিজেলের খরচ বেড়ে যায়। প্রতি ১০০ কিলোমিটারে ০.২ থেকে ১ লিটার পেট্রোল শুষে নেয় এয়ার কন্ডিশনিং সিস্টেম।

পরীক্ষা করে দেখা গেছে, এক ঘণ্টা মারুতি বোল্যানো গাড়িতে এসি চালিয়ে পেট্রোল খরচ হয়েছে ১.৬৬ লিটার। এই মুহূর্তে পেট্রোল প্রতি লিটারে প্রায় ১২৮ টাকা ৫০ পয়সা, ডিজেলের দাম এক লিটারে প্রায় ১০৭ টাকা। তাহলে বুঝতেই পারছেন খুব বেশি খরচ হবে না এসি ব্যবহার করলে। তবে গাড়ির কোম্পানি ও ইঞ্জিনের ক্ষমতা অনুযায়ীও তেল পোড়ার পরিমাণ কমবেশি হতে পারে।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন