কুমিল্লায় মেন্টরিং প্রোগ্রাম আয়োজন করল আইডিয়া ও স্টার্টআপ কুমিল্লা 

30

টেকভিশন২৪ ডেস্ক: টেকনোলজি বিষয়ক উদ্যোক্তা এবং উদ্ভাবকদের উদ্দেশ্যে “রোড টু স্টার্টআপ এন্ট্রাপ্রেনিউরশীপ অ্যান্ড ইনোভেশনস্” বিষয়ক একটি অনুষ্ঠান কুমিল্লার কান্দিরপাড় টাউন হলে অবস্থিত ঐতিহ্যবাহী কুমিল্লা ক্লাবে ১৪ই নভেম্বর ২০২০ আয়োজিত হয়।

উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম, এমপি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুমিল্লা-৬ আসনের এমপি আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম পিএএ, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. এমরান কবির চৌধুরী, আইসিটি বিভাগের iDEA প্রকল্পের পরিচালক ও অতিরিক্ত সচিব সৈয়দ মজিবুল হক এবং অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন কুমিল্লার জেলা প্রশাসক মোঃ আবুল ফজল মীর।

স্টার্টআপ কুমিল্লা দিনব্যাপী মেন্টরিং প্রোগ্রাম আয়োজন করে। আইডিয়া জেনারেশন, বিজনেস প্রেজেন্টেশন, আর্ট অব বিজনেস মডেল ক্যানভাস, পিচিংসহ বিভিন্ন বিষয় এই মেন্টরিং প্রোগ্রামের অন্তর্ভুক্ত করা হয়। মেন্টরিং প্রোগ্রাম শেষে পিচিং কম্পিটিশন আয়োজনের মাধ্যমে বাছাইকৃত স্টার্টআপসমূহ iDEA প্রকল্পের মাধ্যমে ১০ লক্ষ টাকা প্রি-সীড গ্র্যান্টের জন্য সরাসরি আবেদন করতে সক্ষম হবে এবং একই সাথে সরাসরি iDEA প্রকল্পের সিলেকশন কমিটির সামনে প্রি-সীড গ্র্যান্টের জন্য পিচিং করার সুযোগ পাবে। ঢাকা, চট্টগ্রাম এবং খুলনার পর এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে কুমিল্লাতে “স্টার্টআপ বাংলাদেশ” ব্যানার নিয়ে স্টার্টআপ ইকোসিস্টেম তৈরিতে কাজ করার লক্ষ্যে কমিউনিটি ভিত্তিক কার্যক্রম পরিচালনা করছে iDEA প্রকল্প এবং একই সাথে বিভিন্ন ইভেন্ট, প্রশিক্ষণ, সেমিনারসহ নানাভাবে সারা বাংলাদেশে কার্যক্রম পরিচালনা করছে আইসিটি বিভাগের এই প্রকল্পটি।

অনুষ্ঠানে মোঃ তাজুল ইসলাম, এমপি বলেন ডিজিটালাইজেশনের মাধ্যমে আমরা দেশের অসংখ্য উন্নয়ন করতে পারছি। বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে হলে সময়কে কাজে লাগাতে হবে এবং দুর্নীতিকে না বলতে হবে। এছাড়া, মন্ত্রী তরুণ উদ্ভাবকদের মেধা, সৃজনশীলতা ও মানসিক শক্তিকে কাজে লাগাতে উৎসাহিত করেন। তিনি বিভিন্ন দেশের অভিজ্ঞতা এবং সরকারের বিভিন্ন সফলতার বিষয় ব্যাখ্যা করার পাশাপাশি তরুণদের উদ্ভাবন ও তা বাস্তবায়নের ভুমিকা উল্লেখ করেন।

আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার, এমপি বলেন কুমিল্লার বিভিন্ন অর্জনের কথা তুলে ধরেন তাঁর বক্তব্যের মাধ্যমে। তরুণদের মাঝে তিনি স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের উল্লেখ্যযোগ্য বিভিন্ন স্মৃতি এবং মুক্তিযুদ্ধের চিত্র বর্ণনা করেন। সবশেষে, কুমিল্লার বিভিন্ন স্থান থেকে উপস্থিত ছাত্র-ছাত্রীসহ উদ্ভাবকদের এই অনুষ্ঠানে যোগদানের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।

এন এম জিয়াউল আলম পিএএ বাংলাদেশের তথ্য-প্রযুক্তিতে উন্নয়নের একটি চিত্র তাঁর বক্তব্যের মাধ্যমে ব্যাখ্যা করেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে “ডিজিটাল বাংলাদেশ” গঠনে সরকার যে ব্যাপক অগ্রগতি সাধণ করতে পেরেছে তা তিনি সকলের মাঝে তুলে ধরেন।

প্রফেসর ড. এমরান কবির চৌধুরী তরুণদের উদ্ভাবনের গুরুত্ব এবং দেশের খাদ্য, পুষ্টি সমস্যা নিরসনে উদ্ভাবনের প্রয়োজনীয়তা তাঁর বক্তব্যে বিভিন্ন উদাহরণের মাধ্যমে তুলে ধরেন।

অপরদিকে, সৈয়দ মজিবুল হক স্টার্টআপ কুমিল্লার এ ধরণের উদ্যোগকে স্বাগত জানান। তিনি তরুণদের একজন সফল উদ্যোক্তায় পরিণত হবার জন্য অনুপ্রাণিত করেন। এছাড়া, তিনি বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকীতে “বঙ্গবন্ধু ইনোভেশন গ্র্যান্ট (বিগ)”সহ iDEA প্রকল্পের গৃহিত বিভিন্ন কার্যক্রমের কথা তরুণদের সামনে তুলে ধরেন।

সবশেষে, অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে কুমিল্লার জেলা প্রশাসক জনাব মোঃ আবুল ফজল মীর সকলকে ধন্যবাদ জানান। এ ধরনের অনুষ্ঠান তরুণসহ সকলকে অনুপ্রাণিত করবে বলেও তিনি মত প্রকাশ করেন।

 

 

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন