দেশের স্টার্টআপদের সহায়তার উদ্যোগ নিয়ে মাইক্রোসফট

8

ভারতে সফলতার পর, মেন্টরিং, প্রযুক্তি এবং এন্টারপ্রাইজ ক্লায়েন্টে অ্যাকসেসের ক্ষমতায়নে বাংলাদেশসহ এ অঞ্চলের ১৫টি দেশে কার্যক্রম বিস্তৃত করবে হাইওয়ে টু আ ১০০ ইউনিকর্নস। 

টেকভিশন ডেস্ক: এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলে স্টার্টআপ ইকোসিস্টেম শক্তিশালী করতে ‘হাইওয়ে টু আ ১০০ ইউনিকর্নস’ উদ্যোগ চালু করেছে মাইক্রোসফট ফর স্টার্টআপস। ভারতে এ উদ্যোগের সফলতার পরে বাংলাদেশে এ উদ্যোগ চালু করা হলো। ভারতে ছয়টি প্রদেশ থেকে মাত্র ৫৬টি স্টার্টআপ ইমার্জ এক্স কর্মসূচির  জন্য নির্বাচিত হয়, যেখানে ১৫ হাজারের বেশি স্টার্টআপ রয়েছে। ইমার্জ এক্স বিজয়ীদের বৈশ্বিক বাজারে প্রবেশ সংক্রান্ত নানা সুবিধা দেয়া হয়; যার মধ্যে রয়েছে: বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় মেন্টরদের নিয়ে ফাউন্ডার বুটক্যাম্প, বিনিয়োগ প্রাপ্তির সুযোগ, মেন্টরশিপ এবং আজুর, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা, মেশিন লার্নিং ও অন্যান্য বিষয়ের ক্ষেত্রে সহায়তা।

এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলে অন্তর্ভুক্তিমূলক অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির সম্ভাবনা উন্মোচনে উদ্ভাবন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। উচ্চ আয়ের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির দেশগুলো তাদের পিয়ারের তুলনায় গবেষণা ও উন্নয়নে তিন গুণ বেশি বিনিয়োগ করে।

উদ্ভাবনী উদ্যোগ উৎসাহিত করতে, ভবিষ্যতে সত্যিকার অর্থেই যেসব স্টার্টআপের বৈশ্বিক বিস্তৃতির সম্ভাবনা রয়েছে সে প্রযুক্তি বিষয়ক স্টার্টআপগুলো খুঁজে বের করতে এবং সহায়তায় মাইক্রোসফট সরকার ও খাতসংশ্লিষ্ট অংশীদারদের সাথে কাজ করবে।

এ নিয়ে মাইক্রোসফট বাংলাদেশের কান্ট্রি ম্যানেজার আফিফ মোহাম্মদ আলী বলেন, ‘বাংলাদেশে স্টার্টআপগুলোর জন্য সহায়তামূলক ইকোসিস্টেম তৈরিতে মাইক্রোসফটে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। বাংলাদেশের মতো উদীয়মান বাজার বিশ্বের দ্রুত প্রবৃদ্ধিশীল অর্থনীতির মধ্যে অবস্থান করে নিবে, এক্ষেত্রে ইনোভেটর, ডিসরাপটর এবং ফার্স্ট-মুভার হিসেবে স্টার্টআপগুলো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। আমরা ‘হাইওয়ে টু আ ১০০ ইউনিকর্নস’র মাধ্যমে এ অঞ্চলে স্টার্টআপগুলোর ডিজিটাল উদ্ভাবন ত্বরাণ্বিত করার সুযোগ করে দিবো।’

ইমার্জ এক্স প্রতিযোগিতা

১৬টি দেশের (বাংলাদেশ, ভুটান, ব্রুনাই, ক্যাম্বোডিয়া, ইন্দোনেশিয়া, লাওস, মালয়েশিয়া, মালদ্বীপ, মিয়ানমার, নেপাল, নিউজিল্যান্ড, ফিলিপাইন, শ্রীলঙ্কা, সিঙ্গাপুর, থাইল্যান্ড ও ভিয়েতনাম) উদ্ভাবক ও উদ্যোক্তাদের হাইওয়ে টু আ ১০০ ইউনিকর্নস উদ্যোগের অংশ হতে আহবান জানানো হয়েছে।

অংশ নিতে স্টার্টআপগুলোকে প্রথমে তাদের দেশে ইমার্জ এক্স প্রতিযোগিতার জন্য আবেদন করতে হবে। ইমার্জ এক্স প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়ার মানদণ্ডগুলো হলো:

১. বাজারের চাহিদা বিবেচনায় উপযোগী পণ্যসহ বিজনেস-টু-বিজনেস প্রতিষ্ঠান, মুনাফার জন্য যাদের অন্তত ৩ থেকে ৪টি ক্লায়েন্ট রয়েছে।

২. বড় অংশের গ্রাহকসহ (এক লাখ গ্রাহকের বেশি) মুনাফা অর্জনকারী প্রতিষ্ঠান।

৩. ফান্ডিং অতিরিক্ত সুবিধা হিসেবে বিবেচিত হবে।

সকল ইমার্জ এক্স স্টার্টআপ গিটহাব ও আজুর ক্রেডিট এবং ব্যবসায়িক ও প্রযিক্তগত কর্মশালার সুযোগ পাবে। দেশ হিসেবে তিন ফাইনালিস্টের নাম নভেম্বরে ঘোষণা করা হবে। এছাড়াও, তারা এক বছরের মেন্টরশিপ, তিন দিনের বেশি ফাউন্ডার বুট ক্যাম্প এবং মাইক্রোসফটের কো-সেল প্রোগ্রামের মাধ্যমে বৈশ্বিকভাবে এন্টারপ্রাইজ ক্লায়েন্টের সুযোগ পাবে, পাশাপাশি মাইক্রোসফটের বিশেষজ্ঞ এবং খাতসংশ্লিষ্ট দক্ষদের সাথে আলোচনার সুযোগ পাবে।

ইমার্জ এক্স প্রতিযোগিতায় আবেদন করতে:

  • গ্রোথএনাবলারে আবেদন জমা দিতে: https://aka.ms/highwaz
  • বিবেচিত হতে স্টার্টআপগুলোকে তাদের ৮০ শতাংশ গ্রোথএনাবলার প্রোফাইল সম্পন্ন করতে হবে।
  • ৩১ অক্টোবর ২০২০ তারিখে আবেদন প্রক্রিয়া শেষ হবে। যেকোনো সহায়তায় যোগাযোগ করুন: v-kashe@microsoft.com

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন